Almonds [Roasted Almonds, Premium Quality Almonds] কাঠ বাদাম [Kath Badam] 250g

  • Fast Shipping

    Receive products in amazing time
  • Easy Returns

    Return policy that lets you shop at ease
  • Always Authentic

    We only sell 100% authentic products
  • Secure Shopping

    Your data is always protected

৳ 250.00

Highlights

কাঠ বাদাম কমবেশি সবার কাছেই পরিচিতি। কাঠবাদাম অনেক উপকারী একটি খাদ্য। একে বলা হয় সুপারফুড। কাঠবাদামের গুণাগুণ সম্পর্কে ধারণা না থাকায় অনেকেই আমরা একে এড়িয়ে যাই। কাঠ বাদামের উপকারিতা সীমাহীন। প্রতিদিন ১০ গ্রাম কাঠ বাদাম খেলে, আমরা অনেক অসুখ থেকেই নিজেকে সুস্থ রাখতে পারি। কাঠবাদামের আঁশ ভিটামিন এবং খনিজ সমৃদ্ধ এবং ফাইটো-ক্যামিক্যালসে ভরপুর। বিভিন্ন রোগ এবং ক্যান্সার প্রতিরোধে এটি একটি আদর্শ খাদ্য। প্রাচীনকালে কাঠবাদাম প্রাচুর্য্য এবং সুস্বাস্থ্যের প্রতীক বলে মনে করা হতো। এই বাদাম শক্তি ও পুষ্টির যথাযথ উৎস। এরা প্রধানত মনো-আন্স্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড যেমন অলিইক এসিড এবং পালমিটোলিইক এসিডের এসিডের আদর্শ উৎস,যা শরীরের এলডিএল বা বদ কোলেষ্টেরলকে কমাতে সাহায্য করে এবং পাশাপাশি এইচডিএল বা ভালো কোলেষ্টেরলকে বাড়াতে সাহায্য করে। গবেষণায় প্রকাশিত, মনো-আনস্যাচ্যুরেটেড ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ খাদ্য রক্তে স্বাস্থ্যকর লিপিড প্রোফাইল তোইরী করে করোনারী আর্টারী ডিজিজ এবং ষ্ট্রোক প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে।

Description

  • কাঠ বাদাম হৃদপিণ্ড ভালো রাখতে সহায়তা করে। এর ‘আনস্যাচুরেইটেড ফ্যাট’ খারাপ কোলেস্টেরল কমাতে এবং ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়াতে সহায়তা করে।
  • এটা রক্তচাপ কমায় ও রক্ত প্রবাহ উন্নত করতে সহায়তা করে।
  • কাঠ বাদাম উচ্চ ক্যালরি সমৃদ্ধ, নিম্ন কার্বোহাইড্রেট, উচ্চ প্রোটিন, ভালো ফ্যাট ও উচ্চ আঁশ সমৃদ্ধ যা দুইবেলার খাবারের মাঝে নাস্তা হিসেবে খুব উৎকৃষ্ট। এটা হজম ক্রিয়া উন্নত করে এবং উচ্চ আঁশ সমৃদ্ধ হওয়ায় তা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করে।
  • কাঠ বাদামে এমন ফাইবার আছে যেটি কলন ক্যানসার রোধে সহায়ক। তাছাড়া কাঠ বাদামে ভিটামিন ই, Phytochemicals এবং flavonoid আছে যেটি ব্রেস্ট ক্যানসার রোধে সহায়তা করে।
  • কাঠ বাদাম শরীরে ব্লাড সুগার এর ব্যালেন্স রাখে। তাই ডায়বেটিস রোগীদের জন্য অনেক উপকারী।
  • কাঠ বাদাম তেল শরীরের শক্তি সঞ্চালন করে। এতে আছে রিবফ্লাবিন, ফসফরাস, কপার, যেটা শরীরে শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।
  • কাঠ বাদামে আছে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, ভিটামিন ডি। এটি শরীরে হাড় এবং দাঁত মসবুত করে। তাছাড়া যাদের হাড় ক্ষয়, আরথাইটিস রোগ আছে, তাদের জন্য কাঠবাদাম তেলের মালিশ অনেক ভালো।
  • এটা অন্ত্রের ভালো ব্যাক্টেরিয়া সৃষ্টিতে সহায়তা করে।
  • যাদের ‘ল্যাক্টোজ ইন্টলারেন্স’ বা গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা আছে তাদের জন্য গ্লুটেইন ও ল্যাকটোজের বিকল্প হিসেবে কাঠবাদাম ও কাঠবাদামের দুধ খাওয়া ভালো।
  • কাঠ বাদাম এনিমিয়া, জন্ম গত ত্রুটি, মস্তিষ্ক এর শক্তি বাড়াতে সহায়ক।
  • কাঠ বাদামে আছে ভারী ময়েশ্চারাইজার। ভারী হলেও এটি মুখের ব্ল্যাকহেডস, ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে। বিশেষ করে তৈলাক্ত ত্বক এ যারা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারে না, তাদের জন্য অনেক উপকারী।
  • কাঠ বাদামে আছে ভিটামিন ই, ডি ও ই। এটি ত্বকের জন্য অত্যন্ত কার্যকারী। এটি ত্বকের উজ্জলতা বাড়ায়। ত্বকে নিয়মমিত এ তেল দ্বারা মাসাজ করলে ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বারে, তাতে করে ত্বক সুস্থ থাকে। ছোট শিশুদের এই তেল দিয়ে পুরা দেহ মাসাজ করলে, হাড় মজবুত হয়। এটি ত্বক কে সূর্যের হাত থেকে বাঁচায় এবং ত্বক কে ড্যামেজ এর হাত থেকে রক্ষা করে।
  • কাঠ বাদাম তেল খুব তাড়াতাড়ি শরীর শুষে নেয়। তাই যেকোনো সিজনে কাঠবাদাম তেল শরীরে লোশনের পরিবর্তে দেওয়া যাবে।
  • কাঠ বাদাম তেলে আছে ফ্যাটি অ্যাসিড। তাই এটি স্কিন এর যেকোনো চর্ম সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে।
  • কাঠ বাদাম তেল চোখের নীচে কালো দাগ দূর করে। তাছাড়া কাঠ বাদাম বেটে, ওই পেস্ট রাতে ঘুমানোর সময় চোখে দিয়ে ঘুমালে, চোখের নীচের কালো দাগ চলে যায়। চোখের বলিরেখা, চোখ ফুলা ভাবও কমে যায়। কাঠ বাদাম চোখের নীচের দাগ দূর করতে যেকোনো ভালো আই ক্রিম এর থেকে ভালো।
  • কাঠ বাদাম ত্বকের বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে। প্রতিদিন কাঠ বাদামের তেল দিয়ে ত্বক মাসাজ করলে , ত্বকের বলি রেখা কমবে। তাছাড়া মধু, লেবু, কাঠ বাদাম তেল মিশিয়ে মুখে মাস্ক হিসাবে ব্যবহার করলে ত্বক হয়ে উঠবে দীপ্তিময় এবং মুখের বয়সের ছাপ কমে যাবে।
  • কাঠ-বাদাম ওমেগা-থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড, প্রোটিন, ভিটামিন ই ও বায়োটিন সমৃদ্ধ যা ত্বক ও চুলের প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবারহ করতে সহায়ক।
  • কাঠ বাদামে রয়েছে চুল বান্ধব মনো ফ্যাটি অ্যাসিড, তার সাথে ভিটামিন এ, ডি, ই, বি১, বি২ এবং বি৬। এরা চুল কে পুষ্টি দেয়, চুল কে শক্ত করে। ফ্যাটি অ্যাসিড চুল কে সফট, সোজা এবং সিল্কি রাখে।
  • কাঠ বাদামে রয়েছে উচ্চ পরিমাণের ফসফরাস। যেটি ভালো চুল গজাতে সাহায্য করে। তাছাড়া চুল পড়ে প্রধানত ফসফরাস এর অভাবে। নিয়মিত কাঠ বাদাম খেলে ফসফরাসের অভাব মিটবে। শরীর এর ফাংশন থেকে শুরু করে চুলও প্রোটিন পাবে।
  • এটা ত্বক আর্দ্র রাখতে সাহায্য করে এবং চুল উজ্জ্বল ও শক্ত করতে সহায়তা করে।
0.0/5
0 reviews
0
0
0
0
0

There are no reviews yet.

Be the first to review “Almonds [Roasted Almonds, Premium Quality Almonds] কাঠ বাদাম [Kath Badam] 250g”